স্পোর্টস ডেস্কঃ- 

বৃহস্পতিবার রাতে যখন বার্সেলোনার পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হলো, লিওনেল মেসিকে আর ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তার সঙ্গে ২১ বছরের সম্পর্কের ইতি টানতে হচ্ছে, তখন থেকেই জ্বল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে যায়, তাহলে মেসির পরবর্তী গন্তব্য কোথায়? আগামী মৌসুমে কোন ক্লাবের জার্সি পরে খেলতে নামবেন তিনি?’

এই প্রশ্নের উত্তর জানতে অবশ্য বেগ পেতে হয়নি। কারণ, মেসির এই খবর চাউর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মাঠে নেমে পড়ে পিএসজি। ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) গত বেশ কিছুদিন আগে থেকেই মেসির পেছনে লেগে আছে। বার্সাকে ‘না’ করার সঙ্গে সঙ্গেই বিশ্বসেরা এই তারকাকে লুফে নিতে ঝাঁপিয়ে পড়বে তারা।

 

মেসিকে কিনতে মরিয়া ছিল আরও বেশ কিছু ক্লাব। গত বছর যখন মেসি বার্সেলোনা থেকে বিদায় নিতে চেয়েছিলেন, তখন তাকে কেনার দৌড়ে ছিল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু এক বছরের ব্যবধানে ম্যানসিটি অনেকটাই পেছনে পড়ে যায়। এগিয়ে আসে পিএসজি।

শনিবার অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গেছে, মেসি পিএসজিতেই যাচ্ছেন। এর সবচেয়ে বড় কারণ, সেখানে তার ঘনিষ্ট বন্ধু নেইমার রয়েছেন। যিনি এক সময় বার্সায় মেসির সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলেছেন। পিএসজি মালিকের ভাই এক টুইট বার্তায় জানিয়েছিলেন, মেসি পিএসজিতেই আসছেন। এরপর প্যারিসের বিখ্যাত পত্রিকা এল ইকুইপে জানিয়েছিল, মেসির সঙ্গে তিন বছরের চুক্তি হচ্ছে এবং পারিশ্রমিক দেয়া হচ্ছে বছরে ৪০ মিলিয়ন ইউরো। যা নেইমারের চেয়েও ৫ মিলিয়ন ইউরো বেশি।

এরপর আজ ন্যু ক্যাম্পে বার্সার বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে মেসির কাছে জানতে চাওয়া হয় পিএসজিতে যাওয়া সম্পর্কে। বিষয়টা কী সত্যি? জবাবে মেসি বলেন, ‘প্যারিস সেন্ট জার্মেইতেই সম্ভাবনা বেশি এবং হ্যাঁ, এটাই সত্যি।’

 

এরপর তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে কোনো কিছুই নিশ্চিত নয়। কাউকে নিশ্চয়তা দিইনি। বার্সেলোনার বিবৃতি প্রকাশের পর আমি প্রচুর কল পাচ্ছি, মেসেজ পাচ্ছি। আমরা এ নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি।’