নিজস্ব প্রতিনিধিঃ- 

 

ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলা ৫ নং মহামায়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড (পূর্বদেবপুর) বদিউজ্জামান ওরপে বদি সওদাগর বাড়ির প্রবাসী আলমগীর হোসেন ও জাহাঙ্গীর আলম এর ঘরে ৩০ জুন দিবাগত রাত ১টা দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ডাকাত সদস্যরা অস্ত্রের মুখে প্রবাসী আলমগীর হোসেন’র স্ত্রী রওশন আরা বেগম (৩২) কে দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ টাকা সহ অন্যন্য মালামাল লুটে নেয়ার সময় তাদের শৌর চিৎকারে প্রতিবেশীর হাতে আটক হয়। ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানাগেছে,৩০ জুন দিবাগত রাত ১ টার সময় মহামায়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নাছির মেম্বারের বড় ভাই জসিম উদ্দিন (ওরপে ডাকাত জসিম) প্রবাসীর ঘরে ডুকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে আলমিরা খুলে নগদ টাকা, মোবাইল নিয়ে যাওয়ার সময় রৌশনারা বেগম চিৎকার করিলে পার্শের ঘরে থাকা প্রবাসীর ছোট ভাই রফিকুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম সহ পরিবারের অন্যন্য সদস্যরা মিলে ডাকাত জসিম উদ্দিনকে হাতেনাতে আটক করে। নাম

প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী আরো জানান, রাতেই ইউপি সদস্যের নির্দেশে আবদুল মুনাফ (৪৫), আবুল বশর (৬০) ও আবদুল কাদের এর নেতৃত্বে একটি সমঝোতা শালিসীর উদ্যোগ গ্রহনের আশ্বাস দিয়ে আসামীকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তারা আরো জানায়, জসিম ডাকাত এর আগেও ডাকাতি করে সবকিছু নিয়ে যায়। ছাগলনাইয়া থানা সহ অন্যন্য থানাতেও জসিম ডাকাতের বিরুদ্ধে হত্যা, গুম, ডাকাতি সহ নানা অপকর্মে

প্রায় দুই ডজন মামলা রয়েছে। স্থানীয়রা আরো জানায়, জসিম উদ্দিন ওরপে (ডাকাত জসিমের) অত্যাচারে এলাকাতে টিকে থাকা দায়। আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আবেদন জানাচ্ছি ডাকাত জসিমের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে ৩ নং ওয়ার্ড সহ পুরো ছাগলনাইয়া উপজেলা কলংকমুক্ত করবেনতিনি এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয় জনগণের।

 

এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ছাগলনাইয়া-পরশুরাম) সার্কেল সোহেল পারভেজ’র কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ভুক্তভোগীরা যদি আমাদের কাছে অভিযোগ দায়ের করে তাহলে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।