নিজস্ব প্রতিনিধিঃ-

ফেনীর ছাগলনাইয়া পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন-২০২১ উপলক্ষে সকল প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, গণমাধ্যম কর্মী ও ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের সাথে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

২৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন হল রুমে পৌর নির্বাচনের সকল প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের নিয়ে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

ছাগলনাইয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোমেনা আক্তারের সঞ্চালনায় জেলা রিটার্নিং অফিসার নাছির উদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফেনী জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদুল হাসান।

 

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফেনী জেলা পুলিশ সুপার খোন্দকার নূরুন্নবী বিপিএম পিপিএম, জেলা নির্বাচন এবিএম অফিসার আজগর আলী, জেলা আনসার বিডিপি কমান্ডার জানে আলম সুফিয়ান, ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ছাগলনাইয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (ভূমি অফিসার) হোমায়রা ইসলাম, ছাগলনাইয়া সার্কেল এসপি সোহেল পারভেজ, ছাগলনাইয়া থানা অফিসার ইনচার্জ শহিদুল ইসলাম, বিজিবি কমান্ডার সুবেদার নায়েক মোঃ ওমর ফারুকসহ জেলা ও উপজেলার গণমাধ্যম কর্মীবৃন্দসহ পৌর নির্বাচনের মেয়র পার্থী এম. মোস্তফা ও জাকের হায়দার সুমন প্রমুখ।

 

এসময় ফেনী জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদুল হাসান নির্বাচনী কার্যক্রম নিয়ে মতবিনিময় করে পৌর নির্বাচনের সকল প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের প্রতি আশ্বাস রেখে অনুরোধ জানিয়ে বলেন আশা করছি ছাগলনাইয়ার নির্বাচন খুবই সুন্দর ও মাধুর্যতার সাথে সম্পন্ন করতে সকল প্রার্থী ও সাধারণ জনগণ আমাদের সহযোগিতা করবেন।

 

এছাড়াও তিনি এসময় আগামী ২ নভেম্বর ছাগলনাইয়া পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকল বিষয়ে নিরাপত্তা জোর বাড়াতে জেলা পুলিশ সুপার খোন্দকার নূরুন্নবী বিপিএম পিপিএম এর প্রতি আহ্বান জানান। এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার নির্বাচন কে কেন্দ্র করে নির্বাচনের দুইদিন আগে থেকে ছাগলনাইয়া উপজেলায় বাইক চলাচল নিষিদ্ধসহ বহিরাগত কোনো জনগণ নির্বাচনী এলাকায় প্রবেশ করতে পারবে না বলে কঠোর হুশিয়ারি দেন। সকল প্রার্থীকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনগণকে সর্বোচ্চ সু-শৃঙ্খলতার মধ্য দিয়ে যাতে ডিজিটাল এবিএম মেশিনে ভোট প্রদান করতে পারে সেই দিকে লক্ষ্য রাখতে বলেছেন।

 

তিনি আরও বলেন ‘যার ভোট সে দিবে, যাকে খুশি তাকে দিবে’ এই বিষয়টি মাথায় রেখেই সকল প্রার্থী যাতে জনগণের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে তাদের নিরাপত্তার দিকে লক্ষ্য রাখে। এছাড়াও নির্বাচনের দিন পৌর শহরে সকল জনগণকে গুরুত্বপূর্ণ কোনো কারণ ছাড়া অযথা কোনো কারণে রাস্তা-ঘাটে দেখা গেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান। নির্বাচনী কাজে যানবাহন ব্যবহার করতে হলে নির্বাচন কমিশনের বিধিনিষেধ মান্য করে গাড়ি চলাচলের অনুমতি নিতে হবে।