শহর প্রতিনিধি :-

ন্যায্য বেতনের দাবীতে ফেনী জেনারেল হাসপাতালের ৪র্থ শ্রেনী কর্মচারীরা কর্মবিরতি সহ বিক্ষোভ করেছে।

রবিবার (০৯ মে) সকাল থেকে হাসপাতাল প্রাঙ্গণে ওয়ার্ড বয়, ক্লিনার, সুইপারসহ প্রায় ৫৩ জন কর্মচারী আন্দোলনে অংশ নেয়। এতে হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রমে চরমভাবে ব্যাহত হয়ে পড়েছে।দুর্ভোগের স্বীকার রোগী ও স্বজনরা।

 

আন্দোলনকারীরা জানায়, আলম ব্রাদার্স নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তারা চাকুরীতে যোগ দিয়েছেন। সরকার তাদের জন্য মূল বেতন ১৬,৫০০/- (ষোল হাজার পাঁচশত) টাকা ধার্য করলেও দীর্ঘ ১০ বছর কর্মরত থেকে তারা বেতন পাচ্ছেন মাত্র ৩২শ টাকা। অথচ করোনায় জীবনের ঝুকি মাথায় নিয়ে তারা হাসপাতালে কাজ করে যাচ্ছেন। চাকরীস্থলে আক্রান্ত হয়েছেন অনেক কর্মচারী। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান বেতনের টাকা চুরি করায় পরিবার পরিজনসহ অনাহারে অর্ধাহারে চরম কষ্টে দিন যাপন করছেন তারা।

 

এছাড়াও তারা জানায়, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী যার যার ব্যাংক হিসেবে বেতনের টাকা চেকের মাধ্যমে প্রদানের নিয়ম রয়েছে। কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সাক্ষরসহ সাদা চেক তাদের কাছে অনৈতিক ভাবে বুঝিয়ে দিতে চাপ দিচ্ছে। আর ন্যার্য বেতন দেয়া না হলে আগামীতে আরো কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন তারা।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক আবুল খায়ের মিয়াজি জানান, সকাল থেকে হাসপাতালের কাজকর্ম পুরো স্থবির ছিলো। তবে বিষয়টি নিয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ও কর্মচারীদের সাথে দফায় দফায় আলোচনা হয়েছে।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী জানে আলম জানান, বিষয়টি নিয়ে আন্দোলনরত কর্মচারীদের সাথে কথা চলছে। দ্রুত সমাধানে পৌঁছাবেন বলে জানান তিনি।