‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ স্লোগানে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে এসব ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০৪ মে) দুপুর ১টার দিকে নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান এসব ঘরের দলিল ও চাবি গৃহহীনদের হাতে তুলে দেন। এ সময় ১৪০ জনের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক উপহার খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন ডিসি।

ঘর পেয়ে বিবি হাসিনা বলেন, পরের বাড়িতে কাজ করে ভাড়া বাড়িতে থাকতাম। আমার জায়গা-জমি ছিল না। অনেক কষ্ট করেছি। প্রতিদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন আমাকে থাকার জায়গা দিয়েছেন, ঘর দিয়েছেন। আমি অনেক খুশি। তার জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করব। আমাদের মতো গরিবদের পাশে যেন তিনি সারাজীবন থাকতে পারেন। আমাদের চোখের পানি যেন মুছে যায়।

ভ্যানচালক মোহাম্মদ দুলাল বলেন, সংসারে চারজন সদস্য। মাঠে কাজ করে সংসার চালাই। আমার কোনো জমি নেই। প্রধানমন্ত্রী জমি দিয়েছেন, ঘর করে দিয়েছেন। এগুলো পেয়ে আমি খুব খুশি। বিনামূল্যে ঘর পাব, কোনোদিন ভাবিনি।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে নোয়াখালীর নয় উপজেলায় ১ হাজার ২৮৬টি পরিবারকে জমিসহ নতুন ঘর দেওয়া হবে। আজ সুবর্ণচর উপজেলার চর ক্লার্ক ইউনিয়নের ভূমিহীন ও গৃহহীন ১২০ পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি ও জমির দলিল তুলে দিয়েছি।

তিনি বলেন, এর আগে প্রথম ধাপে ১৫০ পরিবারকে জমি ও ঘর দিয়েছি। বাকি ১ হাজার ১৬ পরিবারকে দ্রুত সময়ের মধ্যে ঘর হস্তান্তর করব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুবর্ণচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এএসএম ইবনুল হাসান, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈকত রায়হান, উপজেলা প্রোগ্রাম অফিসার মাইনুদ্দিন ও চর ক্লার্ক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল বাশার।