নিজস্ব প্রতিবেদকঃ- 

 

কঠোর লকডাউনের প্রথমদিনে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাইরে বের হয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) হাতে আটক ও গ্রেফতার হয়েছেন ৭৫৫ জন।

 

বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) লকডাউনের প্রথমদিনের অভিযানে এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয় ডিএমপির ৮টি বিভাগ।

সন্ধ্যায় এসব তথ্য জানান ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম।

 

তিনি জানান, লকডাউনে সরকার নির্দেশিত বিধিনিষেধ মানাতে রাজধানীজুড়ে দিনভর চেকপোস্ট, ভ্রাম্যমাণ আদালত ও টহল পরিচালনা করা হয়। সারাদিনে বিনা কারণে ঘর থেকে বের হয়ে পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন ৪৯৭ জন। এছাড়া বিধিনিষেধ অমান্যের দায়ে আরও ২৫৮ জনকে নিয়মিত মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক তেজগাঁও এলাকায় মোট ২৩২ জনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া, রমনায় ৫৫ জন, ওয়ারীতে ৪ জন, মিরপুরে ৭৫ জন ও গুলশানে ৭ জনকে আটক করা হয়। আর গ্রেফতারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক লালবাগে ৩৮ জন, ওয়ারীতে ৩ জন ও উত্তরায় ৩২ জন।

ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগের পরিচালিত অভিযানে মোট ২৭৪ টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে, রেকারিং করা হয়েছে ৭৭টি গাড়ি। আর ট্রাফিক বিভাগ কর্তৃক গাড়িতে জরিমানার পরিমান ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৫০ টাকা। গাড়ি সংক্রান্ত মোট ৬ জনকে আটক করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়।

 

এদিকে, ডিএমপি পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৭৬ জনকে গ্রেফতার করা হয় আর বিভিন্ন সাজা দেয়া হয় ৮১ জনকে। এদিকে, ভ্রাম্যমান আদালত সাধারণ মানুষকে ৪৫ হাজার ৫৫৭ টাকা জরিমানা করেন, সর্বমোট ২৬ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ২ হাজার ১৫০ টাকা জরিমানা করেন।

সে হিসেবে লকডাউনের প্রথম দিকে ব্যক্তি, গাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান-কেন্দ্রিক ডিএমপির মোট জরিমানার পরিমাণ ৪ লাখ ৯২ হাজার ৫০৭ টাকা।

 

লকডাউন প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার সকালে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রজ্ঞাপনে যাদের বের হওয়ার অনুমতি আছে আজ শুধু তারাই বের হচ্ছেন। তবে অনেকের অভ্যাস প্রথম দুই দিন মানার পর আর কেউ নিয়ম মানতে চান না। তবে ডিএমপি সদস্যরা লকডাউন বাস্তবায়নের জন্য মাঠে রয়েছেন।

 

বুধবার লকডাউন প্রসঙ্গে ডিএমপি কমিশনার বলেন, কেউ অকারণে ঘর থেকে বের হলে আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করব, প্রয়োজনে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে ব্যবস্থা নেব। কেউ অকারণে বের হলেই বেশ আইনি ঝামেলায় পড়তে হবে। যানবাহন ব্যবহার করলে মোটরযান আইনে ব্যবস্থা নেব।

 

কেউ অকারণে বের হলে তাকে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারা অনুযায়ী গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হবে, যেটি আমরা এর আগে কখনও করিনি। এবারে আমরা এই অবস্থান পর্যন্ত যাব। এমনও হতে পারে ডিএমপি প্রথমদিন ৫ হাজার লোক গ্রেফতার করবে, এমনটাও শুনতে পারেন। এরকম পরিস্থিতি হতে পারে, আমরা অত্যন্ত শক্ত অবস্থায় থাকব।