টাইমস বাংলা নিউজ ডেস্ক :-

 

ক্যাচ হাতছাড়ার মাশুল গোনে দ্বিতীয় ম্যাচেই সিরিজ হেরে গেল বাংলাদেশ। ক্রাইস্টচার্চে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেওয়া ২৭২ রানের লক্ষ্য কিউইরা টপকে যায় ৫ উইকেট হাতে রেখে। ক্রাইস্টচার্চে রান তাড়ায় নেমে এটি রেকর্ড।

টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান জড়ো করে বাংলাদেশ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৮ রান করেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ওয়ানডেতে অর্ধশতকের অর্ধশতকের কীর্তি গড়ার দিনে ১০৮ বলে হাঁকান ১১টি চার।

শেষদিকে মোহাম্মদ মিঠুনের ঝড়ো ব্যাটে বাংলাদেশ পায় লড়াকু পুঁজি। ৫৭ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৭৩ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন মিঠুন। এছাড়া মুশফিকুর রহিম ৫৯ বলে ৩৪ ও সৌম্য সরকার ৪৬ বলে ৩২ রান করেন।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে মিচেল স্যান্টনার দুটি এবং ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরি ও কাইল জেমিসন একটি করে উইকেট শিকার করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দলীয় ২৮ রানে মার্তিন গাপটিলকে হারায় কিউইরা। মুস্তাফিজের রহমানের বলে তার হাতেই ক্যাচ তুলে দেন গাপটিল। এরপর জোড়া আঘাত হানেন দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলতে নেমে শেখ মেহেদী হাসান। চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ডেভন কনওয়ে ও অধিনায়ক টম ল্যাথাম।

দুইজনের ১১৩ রানের পার্টনারশিপে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ। এতে দায় আছে বাংলাদেশেরও। পিচ্ছিল হাতের ফিল্ডিং বাংলাদেশকে বেশ ভুগিয়েছে, অনেক সুযোগও নষ্ট করেছে। তামিম ইকবালের দুর্দান্ত থ্রোতে ৯৩ বলে ৭২ রান করা কনওয়ে সাজঘরে ফেরেন। এরপরও মোমেন্টাম নিজেদের দিকে নিতে পারেনি বাংলাদেশ। মুশফিক, তামিম, মেহেদীদের ক্যাচ হাতছাড়ার মাশুল গুনতে হয় ম্যাচ হেরে।

সুযোগ পেয়ে ল্যাথাম হাঁকান শতক। ক্যারিয়ারের ৫ম শতক হাঁকিয়েই ক্ষান্ত হননি, মাঠ ছাড়েন দলের জয় নিশ্চিত করে। ৩৪ বলে ৩০ রান করে জিমি নিশাম সাজঘরে ফিরলেও ড্যারিল মিচেলকে সঙ্গে নিয়ে ১০ বল ও ৫ উইকেট বাকি থাকতেই জয় তুলে নেন ১০৮ বলে ১১০ রান করে অপরাজিত ল্যাথাম। অধিনায়কোচিত এই ইনিংসে ছিল ১০টি চার।

বাংলাদেশের পক্ষে মুস্তাফিজ ও মেহেদী দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : নিউজিল্যান্ড

বাংলাদেশ ২৭১/৬ (৫০ ওভার)
তামিম ৭৮, মিঠুন ৭৩*
স্যান্টনার ৫১/২, জেমিসন ৩৬/১

নিউজিল্যান্ড ২৭৬/৫ (৪৮.২ ওভার)
ল্যাথাম ১১০*, কনওয়ে ৭২
মেহেদী ৪২/২, মুস্তাফিজ ৬২/২

ফল : নিউজিল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী। 

 

 

টিবিএন/ আইএইচএস