ফেনীর ছাগলনাইয়ার মুটুয়া গ্রামে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় মারধরের স্বীকার হয় জাহেদা বেগম নামক এক মহিলা সহ আরো দুইজন। ঘটনাটি ঘটেছে ছাগলনাইয়া পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড মধ্যম মটুয়ায় (নতুন গ্রাম) আবুল কাশেম ফকির বাড়িতে।

এনিয়ে ভুক্তভোগী জাহেদা বেগম’র স্বামী ফয়েজ আহম্মদ বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) ছাগলনাইয়া থানা হাজির হয়ে মোঃ নিজাম উদ্দিন (৪০), আলীম উল্যাহ্ (৫০), মোঃ ফরিদ (১৮), মোঃ বিপুল (১৮), সালমা আক্তার, ছলিম উল্যাহ্, পিংকি আক্তার এর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে আসামী করে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

বাদী ফয়েজ আহম্মদ লিখিত অভিযোগে জানান, হাওলাত (ধার) পাঁচ লাখ টাকা ফেরত দেওয়ার অনুরোধ করলে আসামীগন আজকাল দিবে বলে বলে তালবাহানা শুরু করে। আমার স্ত্রী আবার গত (১৫ এপ্রিল) টাকা ফেরত চাইতে গেলে পূর্ব থেকে পরিকল্পনা করে আসামীগন সহ অজ্ঞাত আরো ২/৩ জন মিলে লাঠিসোঁটা, লোহার রড়, দা, ছুরি দিয়ে অতর্কিত হামলা শুরু করে দেয়।

এসময় আমার স্ত্রী জাহেদা বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যা চেষ্টা চালায়। আসামীরা এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আমার স্ত্রী সহ জাহেদ হোসেন, উম্মে সালমাকে হাতে, পায়ে, বুকে, পীঠে সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ফুলা জখম করে আহতদের শৌর চিৎকারে এলাকানাসী এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায় । পরে এলাকা বাসী আহতদের উদ্ধার করে ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে আমার স্ত্রী জাহেদা বেগম এখনও বাকীরা এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছে ছাগলনাইয়া হাসপাতালে।

যাহার আন্ত বিভাগ রেজিঃ নং- ২৫৩৯, জরুরি বিভাগ রেজিঃ নং- ৪৫৪/১১। আহত জাহেদ হোসেন যার চিকিৎসা রেজিঃ নং- ৪৫৬/১৩, আহত উম্মে সালমা যার চিকিৎসা রেজিঃ নং- ৪৫৫/১২। বাদী আরো জানান, আমি এর সুষ্ঠু বিচার চেয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। অপরদিকে আসামীগনের পক্ষ থেকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছে বলে নিশ্চিত করেছে ছাগলনাইয়া থানা এসআই নোমান।

ছাগলনাইয়া থানার এসআই নোমান এই অভিযোগের তদন্ত ভারের সত্যত্য স্বীকার করে বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তদন্ত চলছে, তদন্তের পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।