ছাগলনাইয়া উপজেলাধীন মহামায়া ইউনিয়নের সত্যনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরীর দায়িত্ব থাকা বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে মোঃ গিয়াস উদ্দিনকে চাকুরীচ্যুত করার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সোমবার (১৩ এপ্রিল) বিকেলে ছাগলনাইয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা অফিসে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে গিয়াস উদ্দিন লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমি সত্যনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী হিসেবে কর্মরত থাকা সত্বেও বর্তমানে আমাকে উক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে সরানোর উদ্দেশ্যে ষড়যন্ত্র করে বিজিবির মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়।

সে মামলাকে কেন্দ্র করে স্কুলের প্রধান শিক্ষক, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও উক্ত পিয়ন পদে আগ্রহী ৩ নং ব্যক্তি আবুল হোসেনসহ আমাকে কর্মস্থলে যোগদান করতে বাধা সৃষ্টি করে। যার ফলে আমি আমার স্ত্রী, সন্তান ও বৃদ্ধা মাকে নিয়ে অনাহারে দিন যাপন করছি।

বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের বরাবর আমার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার জন্য আকুতি করলে তিনি প্রত্যেকবার ইউপি চেয়ারম্যান গরিবশাহ হোসেন চৌধুরী বাদশার দোহাই দেন।

গিয়াস উদ্দিন আরো বলেন, স্কুল কমিটির সদস্যদের মাঝে ইউপি চেয়ারম্যান আমার কর্মক্ষত্রে বার বার অহেতুক বাধা প্রদান করার কারেন। বৃদ্ধা মাকে নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়ীতে গেলে তিনি গিয়াস উদ্দিনকে মারধর করেছে বলেও অভিযোগ করে গিয়াস উদ্দিন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, গিয়াস উদ্দিনের মা জাহানারা আক্তার ও স্ত্রী হোসনে আরা বেগম।

 

এ ব্যাপারে মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যান গরীবশাহ হোসেন বাদশা চৌধুরী’র কাছে কল দিলে উনার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।