রাজশাহী প্রতিনিধি:

রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলা হতে জেলা শহরে যাওয়ার বাইপাস সড়ক হিসেবে খ্যাত আমগাছি,বদ্ধনপুর,পালাশ বাড়ী, রাস্তার মেরামত কাজ সুসম্পন্ন হয়েছে। দুর্গাপুরে প্রথমবারের মতো আধুনিক পেভার মেশিন দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হলো। দুইটি ভাগে  ৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে মোট ২ কোটি ৮৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার ব্যায়ে মেরামত করা হয়। 

সরজমিন ঘুরে দেখা যায় কাজের গুনগত মান ভালো হওয়ায় জনগনের মাঝে উচ্ছ্বাস, আনন্দ লক্ষ্য করা গেছে, রাস্তাটি দৈর্ঘ্য, প্রশস্ততা ঠিক রেখে  খানাখন্দ মেরামত ও কার্পেটিং খুবই সুন্দর ভাবে করা হয়েছে। এই রাস্তা নিয়ে আবুল কাশেম নামের এক ব্যাক্তি জানায়, আমার বাড়ি আমগাছী বাজারে এখান থেকে রাজশাহীর দূরত্ব বেশি নয় কিন্তু আমাদের দুর্গাপুর হয়ে ঘুরে যেতে হতো কারণ রাস্তা ভাঙ্গা থাকার কারণে কোন গাড়িওয়ালা তাদের গাড়ি নিয়ে যেতে চাইত না বলতো গাড়ির সকাপ ভেঙে যাবে। 

চরম দুর্ভোগে পড়তে হতো আমাদের।  রাস্তার কাজ দেখে ভালই মনে হচ্ছে, আর যাইহোক দুই তিনটি বছর অন্তত শান্তিতে থাকা যাবে। অটোরিকশা চালক রবিউল ইসলাম জানান, আমি দুর্গাপুর থেকে আমগাছী নিয়মিত ভাড়া মারী ওই রাস্তাটার অবস্থা এমন ছিল রাজশাহী যাওয়ার জন্য হাজার সাদা সাদি করলেও যাইতাম না রাস্তাটা ভালো হলো শুনেছি দুর্গাপুরে ইঞ্জিনিয়ার খুব ভালো মানুষ ভালো কাজ করেন।

আশা করছি এই রাস্তাটা বহু দিন টিকবে।  রাস্তাটির সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে কথা বলেন দুর্গাপুরের উপজেলার প্রকৌশলী খলিলুর রহমান খলিল জানান, দুর্গাপুর উপজেলার সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ দুইটি সড়কের মধ্যে একটি এই সড়ক বহু মানুষের যাতায়াতের রাস্তা দিয়ে। দুইটি ভাগে দুইটি ঠিকাদারের মাধ্যমে পাঁচ কিলোমিটারের রাস্তাটি মেরামতের কাজ সম্পন্ন করা হয়।

রাস্তাটির নিয়মিতই তদারকি করতাম সর্বশেষ রাস্তাটির সর্বোচ্চ গুণগত মান নিশ্চিত করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, এরপর থেকে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন সড়ক ও তৃণমূলের গুরুত্বপূর্ন  সড়ক ও গুরুত্বপুন গ্রামীন সড়ক প্রস্তত করন সহ কাজের গুনগত মান বৃদ্বি ও সড়ক টেক-সইয়ের  জন্য পেভার মেশিনের মাধ্যমে কাজ করা হবে।

সবমিলিয়ে কাঙ্ক্ষিত রাস্তা পেয়ে অন্তত দুই তিনটি বছর স্বস্তিতে থাকার আশায় বুক বেঁধেছেন সাধারণ মানুষ।