ব্যস্ততম সড়কে প্রতি মিনিটেই যাওয়া ও আসা করে বিভিন্ন যানবাহন। কিন্তু সড়কই যখন মরণ ফাঁদ হয় তখন চালক, যাত্রী ও পথচারীদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। এমনকি যে কোনো সময় দুর্ঘটনার চিন্তা মাথায় নিয়ে ওই সড়কে চলতে হয়

বলছি ফেনীর ছাগলনাইয়া আর ফুলগাজী উপজেলার সংযোগ সড়ক ক্যাপটিন লিংক সড়কের কথা।

১0 জুন বৃহস্পতিবার রাতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠা বন্ধ করে বাড়ীতে যাওয়ার সময়ে পিচল রাস্তায় মোটর সাইকেল এক্সিডেন্ট করেন ডাটালিংক’র পরিচালক মোঃ ইউনুস।

জানা যায়, ইট ও মাটি ব্যবসায়ীদের সড়কে মাটে পড়ে থাকে। যার ফলে সামান্য বৃষ্টি হলে সড়কগুলো মরণ পদে পরিণত হয়।

উক্ত বিষয়ে ক্ষোভ জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দেন ডাটালিংকের অন্য পরিচালক শরিফুল ইসলাম লিংকন।

স্ট্যাটাস টি হুবহু তুলে ধরা হল:

আমজাদ হাট বাজারে মাটি খেকোদের কারনে আজ অল্পের জন্য প্রান টা হারাইনি।

আমজাদ হাট বাজারের দক্ষিন পাশে কে বা কারা
মাটি পরিবহন করার কারনে ছাগলনাইয়া টু আমজাদ হাট সড়কে প্রায় চার ইঞ্চি পরিমান কাদার আস্তরন হয়ে আছে…

এর ফলে অনেক যানবাহন ও মোটর সাইকেল আরোহি
একক্সিডেন্ট হয়েছেন।
আমি নিজেও স্লিপ করে পড়ে গেছি ভাগ্য ভালো ছিল হয়ত গাড়ির গতি কম থাকায় আমাদের কোন ক্ষতি হয়নি আলহামদুলিল্লাহ।

এরকম ও ব্যাস্ততম সড়কে যান চলাচলে অসুবিধা সৃষ্টি ও চলাচলে অনুপোযগী করা সম্পুর্ন অন্যয় ও শাস্তি যোগ্য অপরাধ।

যেহেতু সরকারি ভাবে ফসলি জমির মাটি কাটা অপরাধ সুতারাং ব্যস্ততম মেইন সড়কে এমন কর্ম আরো অত্যান্ত মারাত্বক অপরাধ।
আজকে এখানে কারো না কারো প্রান যেতে পারত বা যেতে পারে।

তাই আমি স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের নিকট
জন স্বার্থে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার অনূরোধ করছি

Uno Fulgazi