নিজস্ব প্রতিবেদক :

 

সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ছাগলনাইয়া উপজেলা কমিটির পরিচিতি সভা অনু্ষ্ঠিত হয়েছে।

ছাগলনাইয়া উপজেলা শাখার উদ্যোগে শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলা অডিটরিয়ামে আয়োজিত অনু্ষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি, পোর্টল্যান্ড গ্রুপের এমডি, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান মজুমদার। উদ্বোধক ছিলেন সংগঠনের মহাসচিব ও ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাওলানা মোহাম্মদ আবেদ আলী। উপজেলা শাখার সভাপতি বদরুদ্দোজা ভুঁঞা তারেকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন পাটোয়ারীর পরিচালনায় এতে বক্তব্য দেন ভাইস চেয়ারম্যান এনামুল হক মজুমদার, জেলা পরিষদের সদস্য কাজী ওমর ফারুক, রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মজুমদার, মহামায়া ইউপি শাহজাহান মিনু, সংগঠনের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ তানবীরুল ইসলাম,সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, চট্টগ্রাম বিভাগীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন, জেলা কমিটির সভাপতি সাংবাদিক শহীদ উল্যাহ ভুঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক মাঈন উদ্দিন সুমন, সাংবাদিক শেখ কামাল, সাংবাদিক এবিএম নিজাম উদ্দিন প্রমূখ।

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মজুমদার বলেন, সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমকে প্রচার ও প্রসার করতে হবে এবং আমাদের সাধ্যমতো অসহায় মানুষের পাশে থাকতে হবে সরকারের পাশাপাশি আমরা এগিয়ে আসলেই দেশের অর্থনীতি সামাজিক উন্নয়ন বিকাশিত হবে”।

 

তিনি আরও বলেন, ইভিএমে ভোট দেওয়ার আগে ফিঙ্গারের মাধ্যমে যাচাই করেই ভোটপ্রয়োগ করতে দেওয়া হয়। এটি আমাদের অনেক সময় সাশ্রয় হয়, খুব দ্রুত ভোট সম্পন্ন করা যায়। আমরা যেহেতু সবদিকে ডিজিটাল থাকতে চাই, তাই যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভোটের ক্ষেত্রেও ইভিএম ব্যবহার করা দরকার বলে মনে করেন তিনি।

 

তিনি বলেন, দেশ এগিয়ে গেছে। সর্বত্রই উন্নয়ন হয়েছে অবকাঠামো থেকে স্যাটেলাইট সবদিক থেকে দেশ এগিয়ে গেছে। নির্বাচনকালীন বাংলাদেশের প্রাসঙ্গিকতা বিবেচনায় ইভিএমই সর্বোত্তম। কারণ এখানে কোনো দাঙ্গা ও হাঙামা নেই। উদ্বোধকের বক্তব্যে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব মাওলানা আবেদ আলী বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী ইভিএম’র মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন প্রত্যাশা করে সাধারণ মানুষ। ‘এ সরকারের অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব।

 

সময়ের সাথে অনেক কিছু পরিবর্তন হয়। আমাদের নির্বাচন প্রক্রিয়ারও পরিবর্তন হয়েছে। যে পরিবর্তন আমাদের দেশকে এগিয়ে নিতে সহায়ক, সে নিয়মকে, পরিবর্তনকে স্বাগত জানাই।’

 

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন ছোট বড় ৬ হাজার নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করেছে। তাদের নির্বাচন পরিচালনার দক্ষতা জনমনে আস্থা ও বিশ্বাসের জন্ম দিয়েছে।’ অনুষ্ঠান শেষে অসহায় মানুষের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ করেন আগত অতিথিবৃন্দ। সভা শেষে ১৮ জন দুঃস্হদের মাঝে ১ লাখ টাকার অনুদান প্রদান করা হয়। মানবাধিকার বিষয়ে অবদান রাখায় বিভিন্ন সংগঠনকে সংবর্ধনা ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।