ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ১১নং বৈরচুনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ জালাল উদ্দীন এর বিরুদ্ধে এলাকার কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহল তার বিরুদ্ধে নানা রকম অপতৎপরতা চালিয়ে তার ভাবমুর্তি নষ্ট করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার করায় এলাকাবাসী ও ভোটারদের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

কতিপয় ইউপি সদস্য ও তার নির্বাচনী প্রতিপক্ষের কিছু লোকজন এলাকাবাসীকে ভুল বুঝিয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার করে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটার চেষ্টা করছে বলে সচেতন মহল মনে করেন। প্রতিপক্ষ ইউপি সদস্যরা দফায় দফায় সংবাদ সম্মেলন করে সংবাদ প্রকাশের চেষ্টা করছে।

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপতৎপরতা

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপতৎপরতা

 

অপর দিকে ইউপি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন ও সংবাদ সম্মেলন করে নিজের শতভাগ স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, ঘুষ ও দূর্ণীতি মুক্ত ইউ’পি পরিষদ পরিচালনা করার যথেষ্ট প্রমাণ দাখিল করেন স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের কাছে।

 

ইউপি পরিষদ কার্যালয় সূত্রে জানা যায় ইউনিয়ন টি ভারত সীমান্তবর্তী এলাকায় ও ঐ ইউনিয়নের সরকারি আয়ের সু-নির্দিষ্ট কোন ক্ষেত্র না থাকায় এবং ইউনিয়ন পরিষদ ফান্ডে টাকা না থাকায় ইউপি সদস্যদের কিছু বকেয়া ভাতা পরিশোধ করা যায়নি। মূলত ইউপি সদস্যদের সম্মানী ভাতার অর্থ ফান্ডে জমা নেই।

 

ফলে ইউপি সদস্যদের ভাতা আত্মসাৎ করার প্রশ্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে ইউ’পি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন সোমবার এ প্রতিনিধিকে জানান, আমার একটি প্রতিপক্ষ গ্রুপ আমাকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে হেয়প্রতিপন্ন করার চেষ্ট করছে। সামনে ইউপি নির্বাচন।

 

জনগণের কাছে আমার জনপ্রিয়তা নষ্ট করার চেষ্টা করছে কয়েক জন ইউপি সদস্য। আমার সম্পর্কে এলাকার আম জনতার যথেষ্ট ভালো ধারনা আছে।