দাদার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত সামাজিক ও ভদ্র ছেলে মোঃ সরোয়ার্দি পাটোয়ারী নিক্সন। ২৭ জুলাই মঙ্গলবার বাদ আসর ফেনীর ছাগলনাইয়া পৌরসভার বাঁশপাড়া গ্রামের (পূর্বাংশে) জানাযা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এরপূর্বে দুপুর ১টায় ছাগলনাইয়া পৌরসভার হিছাছড়া এলাকা সংলগ্ন ব্রীজের উত্তর পাশে ছাগলনাইয়া গ্রামী ট্রাকের সাথে মোটর সাইকেল’র মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোঃ সরোয়ার্দি পাটোয়ারী নিক্সন ও তার বন্ধু শহিদুল ইসলাম রনি ঘটনাস্থলে মারা যায়।

জানা যায়, নিহত শহিদুল ইসলাম রনি (৩০) ছাগলনাইয়া জমদ্দার বাজারে জনি ষ্টোর’র মালিক তাজুল ইসলামের ছেলে। তার গ্রামের পৌর শহরের উত্তর পানুয়া গ্রামে।

অপরদিকে নিহত মোঃ সরোয়ার্দি পাটোয়ারী নিক্সন ছাগলনাইয়া পৌর শহরের বাঁশপাড়া গ্রামের আব্দুর রউপ পাটোয়ারী বাড়ির সেলিম উল্লাহ পাটোয়ারী’র ছেলে।

দাদা-দাদির কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত নিক্সন

দাদা-দাদির কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত নিক্সন

মোঃ সরোয়ার্দি পাটোয়ারী নিক্সন, দীর্ঘদিন বাহারাইনে কর্মরত ছিল। গত ৪মাস পূর্বে সে বাড়ীতে আসলে করোনা পরিস্থিতিতে আটকে যায়।

মৃত্যুকালে তিনি পিতা-মাতা-ভাই-বোন-স্ত্রী-এক ছেলে-এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান।

জানাযা উপস্থিত ছিলেন, ছাগলনাইয়া উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ছাগলনাইয়া উপজেলা আ’লীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মজুমদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এনামুল হক মজুমদার, ফেনী জেলা পরিষদের সদস্য কাজী ওমর ফারুক, পাঠাননগর ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল হায়দার চৌধুরী জুয়েল, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবু মুসা মোহাম্মদ পাটোয়ারী, ছাগলনাইয়া উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা এরশাদ উল্যাহ মেম্বারসহ এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

মোঃ সরোয়ার্দি পাটোয়ারী নিক্সন ছিল ফেনী জেলা পরিষদ’র সদস্য ও ফেনী জেলা মহিলা আ’লীগের সদস্য নাজমা আক্তার কণার ভাসুরের ছেলে।

উক্ত ঘটনায় শোকাহত বন্ধু মহলের অন্যতম একজন শহিদুল ইসলাম রুবেল টাইমস বাংলা নিউজকে জানান, আমি প্রথমে খবর পেয়ে বিশ্বাস করতে পারি নাই। দ্রুত ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এসে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। আমি যতক্ষণ আমার বন্ধুর সাথে থাকি, ততক্ষণ তাকে মোটর সাইকেল চালাতে দিই না। আজকে যশপুর এক ব্যক্তির নিকট কিছু টাকা পাবে, আবার ওই টাকা ফেনীতে গিয়ে ব্যাংকে জমা দিতে হবে। তাই হয়তো তাড়াহুড়া করে মোটর সাইকেল চালিয়ে ছিল এবং ঘাতক ট্রাকটি ওইভাবে ওভার স্পীটে ব্রীজ পার হয়ে মোটর সাইকেলটিকে চাপা দিয়ে আমার সবচেয়ে আপন বন্ধুকে আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে।