পরশুরাম প্রতিনিধি :-

 

নুরুল ইসলাম নাহিদ পরশুরাম উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের রাজনীতিতে একটি আলোচিত নাম।

ছাত্রজীবন থেকে সুসময়-দুঃসময় নেতৃত্ব সংগ্রামে তিনি ছিলেন সবার আগে। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে মির্জানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার পদে প্রার্থী হয়েছেন তিনি। আসন্ন নির্বাচনে নিজের বিজয়ের আশাব্যক্ত করে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন দলমত নির্বিশেষ সকলের সহযোগিতায় ৩নং ওয়ার্ডকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত একটি মডেল ওয়ার্ড হিসাবে গড়ে তুলার লক্ষ্যে আসন্ন নির্বাচনে আমাকে বিজয় করতে ৩নং ওয়ার্ডের সর্বোস্থরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করছি।

 

নুরুল ইসলাম নাহিদ সারাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে বলেন, সারা দেশে দেশরত্ম শেখ হাসিনার এত উন্নয়ন তবুও আমাদের ওয়ার্ডটি পিছিয়ে রয়েছে।

আমার স্বপ্ন, দলমত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা নিয়ে অবকাঠামো উন্নয়নে সবচেয়ে বেশি জোর দেয়া। পাশাপাশি ৩নং ওয়ার্ডকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত একটি মডেল ওয়ার্ড হিসাবে মির্জানগর ইউনিয়নে উন্নয়নের রোল মডেল করে গড়ে তোলা।

আওয়ামী রাজনীতিতে নিজের ত্যাগের কথা স্মরণ করে নাহিদ বলেন, ছাত্ররাজনীতি থেকে শুরু করে জীবনের দুই-তৃতীয়াংশ সময় আওয়ামী রাজনীতিতে কাটিয়েছি। বিএনপি-জামাত জোট সরকার আমলে অসংখ্য হামলা মামলার আসামি সহ বাড়িঘর ছেড়ে ভারতেও আশ্রয় নিতে হয়েছিল আমাকে।

বিএনপি জোট সরকারের তৎকালীন আমলে আওয়ামী লীগ করার অপরাধে ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হয়েছি। কিন্তু তবুও রাজনীতির জীবনযুদ্ধে হেরে না গিয়ে ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করতে কাজ করে গিয়েছি। ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতিতে পা রাখেন নুরুল ইসলাম নাহিদ।

১৯৯২-৯৩ মির্জানগর তৌহিদ একাডেমির ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ দিয়ে আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন নুরুল ইসলাম নাহিদ তারপর প্রর্যায়ক্রমে ১৯৯৫-৯৬ মির্জানগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ২০০১-২০০৩ মির্জনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক,২০০৩-এ মির্জানগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি, ২০০৩ এর পর মির্জনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহ্বায়ক যা ২০০৯ সাল পর্যন্ত ছিলেন তিনি। পরে ২০১২ সাল থেকে বর্তমান অবধি মির্জানগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আসন্ন নির্বাচনে নিজের বিজয় নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে নাহিদ বলেন, আমি ১০০ ভাগ আশাবাদি। কারণ এলাকায় বিভিন্ন সমাজিক ও জনসেবামূলক কাজে নিজে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে অংশগ্রহণ করেছি।

তাছাড়া দেশরত্ন শেখ হাসিনার ভিষণ ৪১ পূরণে ওয়ার্ড পর্যায়ে নিজের যোগ্যতাকে কাজে লাগাতে নির্বাচন করতে চাই।